শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ০৫:৫১ পূর্বাহ্ন

আট বছরেও পুত্র হত্যার বিচার না পেয়ে পিতা শয্যাশয়ি

এখনই সময় ডেস্ক / ২৩২
আপডেট : রবিবার, ২৮ আগস্ট, ২০২২, ১২:১০ অপরাহ্ণ

৩ আগস্ট ২০১৪ সাল বিকা‌লে বা‌ড়ি থে‌কে ডে‌কে নি‌য়ে যায় চাচা‌তো ভাই রুবেলসহ অন্যরা। ওই দিনই রাত ৯টায় মাথা বিহীন লাশ পাওযা যায় বা‌ড়ির অদু‌রে পালরদী নদীর পা‌ড়ে। পরের দিন ৪ আগস্ট নিহ‌তের বাবা আ‌জিজ হাওলাদার বা‌দি হ‌য়ে মামলা ক‌রে‌ন । আজ আট বছর অ‌তিবা‌হিত হ‌য়ে গে‌লেও আসামিদের এক দিনের জন্যও হাজতবাস কর‌তে হয়‌নি ! উচ্চ্য আদালত থে‌কে জা‌মিনে এ‌সে উ‌ল্টো বা‌দি‌কে হুমকি ধাম‌কি দি‌য়ে যা‌চ্ছে আসা‌মিরা। মামলা তু‌লে না নি‌লে বা‌দি‌কেও হত্যার হুম‌কি দেন তারা ! আসামিরা একই বা‌ড়ির হওয়ায় বা‌দি র‌য়ে‌ছেন আত‌ঙ্কে। বিচা‌রের আশায় বি‌ভিন্ন দপ্ত‌রে ও আদালতের বারান্দায় ঘুর‌তে ঘুর‌তে বা‌দি এখন শয্যাশ‌য়ি ।

মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার রমজানপুর ইউনিয়নের চরআইরকান্দি গ্রামে পালরদি নদীর পাড় থেকে কাওছার হাওলাদার (২০) নামে এক যুবকের মাথাবিহীন মৃতদেহ উদ্ধার করে কালকিনি থানা পুলিশ। রোববার রাতে মৃতদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত কাওছার হাওলাদার উত্তর চড়আইরকান্দি গ্রামের আজিজ হাওলাদারের ছেলে ।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ৩ আগস্ট ২০১৪ রোববার রাত ৮টার সময় কাওছারকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যান তার চাচাতো ভাই রুবেল হাওলাদার ও অন্যারা।
এরপর তিনি আর বাড়ি ফেরেননি। অনেক খোঁজাখুঁজির পর রাতে ওই গ্রামের চরআইরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে নদীর পাড়ে তার মাথাবিহীন মৃতদেহ পাওয়া যায়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

নিহত কাওছারের বাবা আজিজ হাওলাদার বলেন, আমার সৎ ভাই গিয়াস উদ্দিন হাওলাদার বাকি টাকায় রেজাউলকে বিদেশে নেয়। সে টাকা চাওয়ার জেড়ে ছেলেকে খুন করে তার দেহ থেকে মাথা আলাদা করে নিয়ে গেছে। আমি আমার ছে‌লের খুনিদের বিচার চাই।


এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

Theme Customized By Theme Park BD