শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১২:২৫ অপরাহ্ন

সাবেক ভোলা জেলা ছাত্রলীগ সভাপতির খোলা চিঠি

এখনই সময় ডেস্ক / ৪২
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর, ২০২০, ৭:১৯ অপরাহ্ণ

ভোলা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ শাহিন অভিযোগ করেছেন “২০১৩ সালে দলীয় অভ্যন্তরীণ কোন্দলের একটি মামলায় স্থানীয় ক্ষমতাসীন মহল পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এর মাধ্যমে বিচারাধীন আদালতকে প্ররোচিত করে অামাকে সাজা প্রদানের নীল নঁকশা হচ্ছে।

৪ মে ২০১৩ সালে স্থানীয় এক যুবলীগ নেতাকে পুলিশ কর্তৃক গ্রেপ্তার করাকে কেন্দ্র করে একদল উত্তেজিত যুবলীগ কর্মী জেলা আ’লীগ কার্যালয়ের আসবাবপত্র ভাংচুর করে। সেই ঘটনায় একই মামলায় ভাংচুর ও বিস্ফোরক আইনের ৩ ধারায় চার্জশীট প্রদান করে পুলিশ। ঘটনার সাথে আমার কোন রকম সংশ্লিষ্টতা না থাকা সত্বেও কেবল রাজনৈতিক ভাবে হয়রানী করার হীন মানষে আমাকে এই মামলায় আসামী করা হয়েছে।

ভোলার আওয়ামীলীগ নেতা কর্মীগনসহ সর্বোস্তরের সাধারন মানুষ জ্ঞাত আছেন ” কেবল মাত্র রাজনৈতিক মতানৈক্যের কারনে আমাকে ২০১৭ সালে সাড়ে তিন মাস কারাভোগ করতে হয়েছে। ২০১৮ সালে একবার জানাজা থেকে ২০১৯ সালে আমার বাস ভবন থেকে গ্রেপ্তার করে মিথ্যা মাদক মামলায় আসামী করে দীর্ঘদিন কারাবন্দী করে রাখা হয়। অর্থাৎ তিন বছরের মধ্যে প্রভাবশালী মহলের আক্রোশে পড়ে আমাকে দীর্ঘ ১১মাস ২৩ দিন কারাবন্দী থাকতে হয়েছে।

এরপরেও চলছে ষড়যন্ত্র। আমি ওপেনহার্ট সার্জারীর প্যাশেন্ট। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারী মাসে পুনরায় আমার হৃদযন্ত্রে দুটি রিং পড়ানো হয়েছে। শারিরীক এহেন অবস্থায় এখন আবার সেই পুরনো কুশীলবরা পাবলিক প্রসিকিউটরের মাধ্যমে বিচারাধীন আদালতকে নানা ভাবে প্ররোচিত করে আমাকে সাজা প্রদানের অপচেষ্টা করছে।

ভোলার বিজ্ঞ অাদালতে সবার জন্য এক নিয়ম আর আমার জন্য অন্য নিয়ম। আদালতের হেফাজত থেকে আমার মামলার নথি হারিয়েছে একাধিকবার। ইতিপুর্বে আমার এডভোকেটকে উচ্চ মহল কর্তৃক হুমকি প্রদান করে মামলা কার্য থেকে সরে যেতে বাধ্য করে। আমার জন্য যাতে কোন ল’ইয়ার না দাঁড়ায় তেমন ন্যাক্কারজনক ঘটনাও ঘটিয়েছে। ভোলায় মাত্র ১৮ দিনের মাথায় জেলা ও দ্বায়রা জজকে ষ্ট্যান্ড রিলিজ করে নজীরবিহীন ইতিহাস সৃষ্টি করেছে পরাক্রমশালীরা। প্রভাবশালীদের অনৈতিক আইন বহির্ভুত প্রেশারে স্থানীয় আদালত সন্ত্রোস্ত দেখে অনেক আগেই এই আদালতের প্রতি অামি আস্থা হারিয়েছি।

তাছাড়া বিচারাধীন মামলায় বাদী যেভাবে কনফার্ম সাজার অাগাম ঘোষনা দিচ্ছে তাতে আমি ধরে নিয়েছি এই আদালতে আমি ন্যায় বিচার পাবোনা। আমার এডভোকেটের সকল আইনী সুবিধা কেড়ে নিয়ে পিপির পরামর্শ মোতাবেক আদালত তার বিচার কার্য চালিয়ে যাচ্ছে খেয়াল খুশী মতো।

তাই আমি গণমাধ্যমের সহায়তায় আমার কথা গুলো দেশের সরকার, সরকার প্রধান মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ সাধারন জনগনকে জানানোর উদ্যোগ নিয়েছি। আমি গনতন্ত্রের মানসকন্যা মানবতার মহান নেত্রী দেশরত্ম শেখ হাসিনার সবিনয় হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

লেখকঃ ভোলা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক_শাহিন।


আপনার মতামত লিখুন :

Comments are closed.

এ জাতীয় আরও খবর
Theme Customized By Theme Park BD
x
%d bloggers like this:
x
%d bloggers like this: