শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৪১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
Logo দুই ছাত্রের একাউন্টে ৯০০ কোটি টাকা পড়ে ষষ্ঠ শ্রেণীতে Logo নির্মানাধীন প্রকল্প মেট্রোরেলের মালামাল চুরি, গ্রেফতার ৫ Logo গৌরনদীতে সাংবাদিক পিতার ফাতেহায় দোয়া-মোনাজাত অনুষ্ঠিত Logo দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘন্টায়  ৩৮ জনের মৃত্যু Logo জামালপুরে নিখোঁজ হওয়া সেই ৩ মাদ্রাসা ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার Logo জাতিসংঘের অধিবেশনে যোগ দিতে ঢাকা ছেড়েছেন প্রধানমন্ত্রী Logo ইভ্যালির সিইও রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা র‍্যাবের হাতে গ্রেফতার Logo আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ’র দীর্ঘায়ু কামনায় দোয়া-মোনাজাত Logo গৌরনদীতে সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত-১ Logo ইভ্যালির সিইও মো. রাসেল ও তার স্ত্রী প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনের বিরুদ্ধে মামলা

শেখ কামাল ও মেজর ডালিমের স্ত্রী

এখনই সময় ডেস্ক / ১০
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৫ আগস্ট, ২০২১, ৭:০৯ অপরাহ্ণ

এখনই সময় :
বাংলাদেশের অনেক মানুষের মধ্যে একটা ধারণা আছে যে শেখ কামাল মেজর ডালিমের স্ত্রীকে কিডন্যাপ করেছিলো। তাই মেজর ডালিম শেখ মুজিবকে উৎখাতের অভ্যুত্থানে যুক্ত ছিলো। আজকেও আমার ওয়ালে এই বিষয়ে অনেকেই জানতে চেয়েছেন।

এই প্রচার শুনলে খোদ মেজর ডালিমই বিব্রত হবেন, কারণ ঘটনাটা মোটেই তা নয়। শেখ কামাল, মেজর ডালিম এবং তার স্ত্রী নিম্মির স্নেহভাজন ছিলো। তাদের মধ্যে শ্রদ্ধা এবং স্নেহের সম্পর্ক ছিলো। শেখ কামাল মেজর ডালিমকে “বস” বলে সন্মোধন করতো। শেখ কামাল কুমিল্লাতে সাংগঠনিক সফরে গেলে মেজর ডালিমের ক্যান্টনমেন্টের বাসায় উঠতেন। শেখ মুজিবও মেজর ডালিমকে স্নেহ করতেন। শেখ মুজিবের অন্দরমহলে মেজর ডালিমের অবাধ যাতায়াত ছিলো। মেজর ডালিমকে শেখ মুজিবের ঘরের লোকই বলা যায়। মেজর ডালিমকে অভ্যুত্থানকারীরা ১৫ ই আগষ্টে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে আক্রমণ করার দায়িত্ব দিতে চেয়েছিলো। মেজর ডালিম সেই দায়িত্ব নেয় নাই।

মেজর ডালিমের স্ত্রী কখনোই কিডন্যাপড হন নাই। কিডন্যাপড হয়েছিলেন মেজর ডালিম। আর কিডন্যাপ করেছিলো সেই সময়ে রেডক্রসের চেয়ারম্যান গাজী গোলাম মোস্তফা যে কিনা শেখ মুজিবের কম্বলটাও মেরে দিয়েছিলো।

ঘটনা ঘটে ১৯৭৪ সালের মাঝামাঝি মেজর ডালিমের খালাতো বোনের বিয়েতে। বিয়েটা হচ্ছিলো ইস্কাটন গার্ডেনে লেডিস ক্লাবে। সেইখানে খুবই তুচ্ছ কারণে মেজর ডালিমের শ্যালকের সাথে গাজী গোলাম মোস্তফার ছেলেদের ঝগড়া লাগে। সেই ঝগড়াটা মৃদু হাতাহাতি পর্যন্তও গড়াতে পারে। এই ঘটনায় গাজী গোলাম মোস্তফা সাঙ্গপাঙ্গো নিয়ে মেজর ডালিমকে অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে যায়। সেইসময়ে মেজর ডালিমের খালা আর মেজর ডালিমের স্ত্রী বাধা দেয়ার চেষ্টা করে। বাধা দিতে ব্যর্থ হলে উনারা বলেন যে ডালিমকে একা নিতে পারবেন না, আমাদেরকেও নিয়ে চলেন। এই বলে গাজীর গাড়িতে উনারা উঠে বসেন।

এই খবর ক্যান্টনমেন্টে পৌছুলে আর্মির তরুণ অফিসারেরা গাজীর বাড়িতে গিয়ে তার পরিবারের সদস্যদের তুলে নিয়ে আসে। এই খবর শুনে গাজী দেখে অবস্থা বেগতিক। তখন সে গাড়ি বহর নিয়ে ৩২ নম্বরে চলে আসে।

শেখ মুজিব গাজীকে মেজর ডালিমের স্ত্রী নিম্মির কাছে মাফ চাইতে বলেন। নিম্মি গাজিকে সেইখানেই তুলোধনা করেন। তিনি শান্ত হচ্ছিলেন না। তখন শেখ মুজিব নিম্মিকে বলেন, মা তুই শান্ত হ, হাসিনা রেহানার মতো তুইও আমার মেয়ে। গাজী ভীষণ অন্যায় করেছে, আমি নিজে তাকে শাস্তি দেবো। এই বলে শেখ রেহানাকে বলেন নিম্মিকে উপরে নিয়ে যেতে।

এই পুরো ঘটনার সময়ে শেখ কামাল সম্ভবত ৩২ নম্বরেও ছিলেন না।

যাই হোক, সুবিচারের প্রতিশ্রুতি দিলেও শেখ মুজিব সেনা শৃংখলা ভঙ্গের দায়ে মেজর ডালিমকেই চাকুরীচ্যুত করেন।

এই হলো ১৯৭৫ এর পনোরোই আগষ্টের আগে ঘটে যাওয়া সেই গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা যা ১৫ ই আগষ্টের ঘটনার একটা প্রভাবক ছিলো।

কপিড ফ্রম: পিনাকী ভট্রাচার্যের দেয়াল হতে।


আপনার মতামত লিখুন :

Comments are closed.

এ জাতীয় আরও খবর
Theme Customized By Theme Park BD
x
%d bloggers like this:
x
%d bloggers like this: