সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ১২:৫৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর বর্ণাঢ্য জীবন

জাহিদুল ইসলাম মামুন / ৫৭
আপডেট : শুক্রবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০২১, ২:৪৬ অপরাহ্ণ

অ‌বিসংবা‌দিত নেতা আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর শুভ জম্ম‌দি‌নের শু‌ভেচ্ছা

বরিশাল বিভাগের আলোকিত কৃর্তি সন্তান. ঐতিহাসিক পার্বত্য শান্তি চুক্তির প্রণেতা. পার্বত্য শান্তি চুক্তির বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক (মন্ত্রী),
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দক্ষিণ অঞ্চলের রাজনৈতিক অভিভাবক এবং দক্ষিণবঙ্গের জননন্দিত রাজনীতিবিদ সকলের শ্রদ্ধা ভাজন জননেতা
বঙ্গবন্ধুর আপন ভাগ্নে. মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম মন্ত্রী পরিষদের সদস্য শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত এর সুযোগ সন্তান, বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাবেক জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ, মুজিব বা‌হিনীর প্রধান মাননীয় মন্ত্রী আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ ।

আজ তার শুভ জম্ম‌দিন
আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ ১৯৪৪ সালে ১০ ডিসেম্বর বরিশাল শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক. স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম মন্ত্রী পরিষদের সদস্য. কৃষক নেতা শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত. তাঁর মাতা. বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের তৃতীয় বোন আমেনা বেগম। তাঁর পৈত্রিক নিবাস বরিশাল জেলার তৎকালীন গৌরনদী উপ‌জেলার বর্তমান আগৈলঝাড়া উপজেলার সেরাল গ্রামের সের‌নিয়াবাত প‌রিবা‌রে ।

আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ বরিশালে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও কলেজ জীবন অতিবাহিত করেন। তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন।

তিনি ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন এবং মুজিব বাহিনীর আঞ্চলিক প্রধান ছিলেন। তিনি যশোর. গোপালগঞ্জ ও গৌরনদীতে পাকবাহিনীর সাথে সম্মুখে যুদ্ধে নেতৃত্ব দেন। স্বাধীনতার পর তিনি ১৯৭৩ সালে নির্বাচনে বরিশাল পৌরসভার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। চেয়ারম্যান হিসেবে তিনি সাধারণ মানুষের কাছে জনপ্রিয়তা অর্জন করেন।

১৯৭৫ সালে ১৫ আগষ্ট ঢাকায় তার পিতা আব্দুর রব সেরনিয়াবাতের বাসভবনে ঘাতক আক্রমনে তার পিতা আব্দুর রব সের‌নিয়াবাত. শিশুপুত্র সুকান্ত বাবু. বোন আরজু ম‌নি. ভাই আ‌রিফ সের‌নিয়াবাত. চাচাতো ভাই শ‌হিদ সের‌নিয়াবাত কে হত্যা করে। তাঁর মাতা. বোন ও স্ত্রী শাহানা আবদুল্লাহ কে গুলি করে আহত করা হয়। তিনি ভাগ্যক্রমে প্রাণে বেঁচে যান।

আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালে বরিশাল-১ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।
তিনি ১৯৯৬ সাল থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ ছিলেন। ১৯৯৭ সালে ২ ডিসেম্বর তিনি বাংলাদেশের পক্ষে পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তির ঐতিহাসিক স্বাক্ষর করেন। ২০০০ সালে ২৬ জুন তিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য হন।

আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ ২০১৪ সালে ৫ জানুয়ারি বরিশাল-১ আসন থেকে জাতীয় সংসদের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ২০১৮ সালে ১৮ জানুয়ারি পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক জাতীয় কমিটির আহবায়ক মনোনীত হন। যা বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রী পদমর্যাদায়।

আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ ২০১৯ সালে বরিশাল-১ আসন থেকে জাতীয় সংসদের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। বর্তমানে বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দায়িত্বে পালন করছেন।
তিনি দক্ষিণ অঞ্চলের উন্নয়নের অন্যতম রূপকার।

দেশ বরেণ্য রাজনীতিবীদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বর্ষিয়ান রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ’র সুস্থতা. দীর্ঘায়ু কামনা করছি এবং তার জন্মদিন উপলক্ষে তাকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই।


আপনার মতামত লিখুন :

Comments are closed.

এ জাতীয় আরও খবর
Theme Customized By Theme Park BD
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: